fbpx

P2P MEDIA

পিটুপি-রয়েল টিউলিপ সমঝোতা স্বারক স্বাক্ষরিক

Posted by MEHEDI HASAN NILOY On Oct 12 , 2022

করপোরেট প্রতিষ্ঠান পিটুপি’র সঙ্গে শনিবার (০৮ অক্টোবর) পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত কক্সবাজারের ইনানী বিচস্থ অভিজাত পাঁচতারকা হোটেল রয়েল টিউলিপ সী পার্ল বিচ রিসোর্ট অ্যান্ড স্পা-এর সঙ্গে একটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষরিত হয়।

এই চুক্তির ফলে পিটুপি’র প্রতিটি কনসার্নের হাই ভ্যালুড কাস্টমার, প্রিভিলেজড কার্ড হোল্ডার, সদস্য, কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং তাদের পরিবারের সদস্যরা কক্সবাজারে বেড়াতে গিয়ে রয়েল টিউলিপ হোটেলে অবস্থান করলে কিংবা কোনো সার্ভিস নিতে চাইলে বিশেষ সুবিধা পাবেন। অন্যদিকে রয়েল টিউলিপের কর্মকর্তা, কর্মচারী, কাস্টমার ও কার্ড হোল্ডাররা পিটুপি’র প্রিমিয়াম ক্লদিং ব্র্যান্ড স্ট্রাইপ, পিটুপি ফার্নিচার এবং পিটুপি এক্সপেরিয়েন্স সেন্টারে যেকোনো কেনাকাটায় বিশেষ সুবিধা পাবেন।

পিটুপি’র পক্ষে ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) জনাব মোস্তফা আশরাফুল ইসলাম আলভী, চেয়ারম্যান জনাব সাদমান সাইকা শেফা এবং হোটেল রয়েল টিউলিপ সী পার্ল বিচ রিসোর্টের জেনারেল ম্যানেজার আজেম শাহ এই চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

এ সময় পিটুপি’র হেড অব বিজনেস জনাব রুবায়েত বিন আবেদীন, কনসালন্ট্যান্ট (সেলস্, মার্কেটিং, কমিনিউকেশন) জনাব মোহাম্মদ হাসান ও হোটেল রয়েল টিউলিপ সী পার্ল বিচ রির্সোটের এ জি এম জনাব নাবিদ আহসান চৌধুরী, ম্যানেজার জনাব শাহীন মোহাম্মদ নওশাদ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, নির্মাণ শিল্পের সবকিছু একই ছাদের নিচে এনে ২০১৩ সালে যাত্রা শুরু করে পিটুপি। পিটুপি’র রয়েছে নিজস্ব ডিজাইন ও নিজস্ব কনস্ট্রাকশন টিম। আছে নিজস্ব রড, সিমেন্ট, ব্রিকস, রেডি মিক্সের মতো কনস্ট্রাকশন ম্যাটেরিয়াল। টাইলস, স্যানিটারি, লাইট, ফার্নিচার, হার্ডওয়্যারসের মতো- যাবতীয় ফিনিশ ম্যাটেরিয়ালসও আছে একই ছাদের নিচে। এবং ৭০+ ইঞ্জিনিয়ার-আর্টিটেক্ট নিয়ে পিটুপি এখন একটি পরিপূর্ণ রিয়াল এস্টেট প্রতিষ্ঠান। যাদের অভিজ্ঞতা ও নিষ্ঠায় পিটুপি পারছে নির্দিষ্ট সময়ের আগেই প্রজেক্টের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করতে।

এছাড়াও পিটুপি’র রয়েছে— পিটুপি ফার্নিচার, পিটুপি ইভেন্টস, পিটুপি ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড কনস্ট্রাকশনস লিমিটেড, উইকন প্রপার্টিজ লিমিটেড, প্রিমিয়াম ক্লোদিং ব্র্যান্ড স্ট্রাইপ ও পিটুপি ৩৬০।

অন্যদিকে কক্সবাজারের ইনানী সমুদ্রসৈকতে পাঁচতারা চেইন হোটেল ‘রয়েল টিউলিপ সি পার্ল বিচ রিসোর্ট’ -এর নির্মাণের কাজ শুরু হয় ২০১০ সালের ১০ অক্টোবর। এরপর ২০১৫ সালের এপ্রিলে কার্যক্রম শুরু করে বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ আন্তর্জাতিক মানের এই হোটেলটি।

প্রায় ৫০ বিঘা জমির ওপর নির্মিত ‘রয়েল টিউলিপ সি পার্ল বিচ রিসোর্টে’ ৪৯৩টি বিভিন্ন সাইজের রুম, সার্ভিস অ্যাপার্টমেন্ট, রেস্টুরেন্ট, আন্তর্জাতিক মানের বার, কফি শপ, জিমনেসিয়াম, সুইমিং পুল, ট্র্যাডিশনাল থাই স্পাসহ বিভিন্ন ধরনের আধুনিক আয়োজন রয়েছে।